২৪ জুলাই, ২০২৪

নিষেধাজ্ঞা শেষে শরীয়তপুরের জেলেরা মাছ ধরার প্রস্তুতি নিচ্ছে


শরীয়তপুর নড়িয়া উপজেলার সুরেশ্বর থেকে গোসাইরহাট উপজেলার কোদালপুর পর্যন্ত পদ্মা মেঘনা প্রায় বিশ কিলোমিটার এলাকা ইলিশের অভয়ারণ্য হিসেবে খ্যাত। আর এই ইলিশের অভয়ারণ্য প্রজনন মৌসুমে অক্টোবর থেকে নভেম্বরের মাসে ২ তারিখ পর্যন্ত নদীতে জাল ফেলার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে সরকার। ইলিশের স্বাভাবিক বৃদ্ধি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে এই অভিযান পরিচালনা করেন মৎস্য বিভাগ ও প্রশাসন।  

সরকারের দেওয়া  নিষেধাজ্ঞা  শেষে  নদীতে মাছ ধরার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে শরীয়তপুরের জেলেরা।  জাল ও নৌকা প্রস্তুত করতে ব্যস্ত সময় পার করছে তারা। জেলেরা বলেন সরকারের  নিষেধাজ্ঞা মেনে নদিতে মাছ ধরতে যাননি তারা।

এখন নদীতে মাছ পাওয়ার আশা করছেন তারা। 

উল্লেখ্য,  গত ১২ অক্টোবর থেকে ২ নভেম্বর রাত ১২ টা পর্যন্ত মা ইলিশ প্রজননের জন্য নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে মৎস্য অধিদপ্তর। এসময় ইলিশ ধরা পরিবহন ক্রয় বিক্রয়ে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আমিনুল ইসলাম জানান, বিগত বছরের চেয়ে এবছর আমরা  নদীতে কড়া করি নজর দাড়ি করি ফলে আশা করছি শতভাগ সফলতা আসবে।

author

নিউজ ডেস্ক (৪৮)