Header Ads

বোনম্যারো ক্যান্সার চিকিৎসায় নতুন ওষুধ আবিস্কার

বোনম্যারো ক্যান্সারে আক্রান্তদের জন্য সুখবর। নতুন আবিষ্কৃত একটি থেরাপিউটিক ড্রাগ এই গুরুতর ক্যান্সারের রোগীদের বেঁচে থাকার হার বৃদ্ধি ও উন্নতিতে করতে পারে বলেই জানিয়েছেন গবেষকরা। ব্রিটেনের নিউক্যাসেল ইউনিভার্সিটির গবেষকদের ক্লিনিকাল ট্রায়ালে নতুন আবিষ্কৃত 'লেনালিডোমাইড' নামের এই ওষুধের দ্বারাই চিকিৎসা করে ইতিবাচক ফলাফল পাওয়া গেছে।
'দ্য ল্যান্সেট অনকোলজি' পত্রিকায় প্রকাশিত ফলাফলে দেখা গেছে, যারা এই ওষুধ গ্রহণ করছেন না তাদের তুলনায় যারা 'লেনালিডোমাইড' ড্রাগ ব্যবহার করেছেন তাদের সার্বিক স্বাস্থ্যের উন্নতি দেখা গেছে। মায়লোমা প্লাজমা কোষের ক্যান্সার এবং এটি শরীরের বিভিন্ন অংশ যেমন মেরুদণ্ড, মস্তিষ্ক, শ্রোণি এবং পাঁজরকে প্রভাবিত করতে পারে। বর্তমান চিকিৎসায় সাধারণত কেমোথেরাপি এবং স্টেম সেল ট্রান্সপ্লান্টই ব্যবহার করা হয় রোগিকে আরাম দেওয়ার জন্য। 
নিউক্যাসেলের ক্যান্সার রিসার্চ এর উত্তরাঞ্চলীয় ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক গ্রাহাম জ্যাকসন বলেন, 'এটি একটি বড় সাফল্য। প্রাথমিক থেরাপির পরে মায়লোমা রোগীদের শরীরে লেনালিডোমাইডের দীর্ঘমেয়াদী ব্যবহার উল্লেখযোগ্যভাবে প্রভাব ফেলে।'
তিনি আরও বলেন, 'এটি একটি বড় এবং গুরুত্বপূর্ণ ধাপ। এটি লক্ষণীয় যে অল্প বয়সী রোগীদের জন্য লেনালিডোমাইড এই কঠিন বোনম্যারো ক্যান্সারের পরেও তাদের সামগ্রিক জীবনযাপনে ব্যাপক উন্নতি ঘটায়। আমাদের গবেষণায় দেখা যাচ্ছে যে, স্টেম সেল ট্রান্সপ্লান্টেশন হয়েছে এমন নতুন রোগীদের জন্য 'লেনালিডোমাইড' প্রয়োগ করা যেতে পারে।
গবেষণার অংশ হিসাবে, ১১৩৭ জন নতুন রোগীদের লেনালিডোমাইড রক্ষণাবেক্ষণ থেরাপি দেওয়া হয় এবং ৮৩৪ জন রোগীকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছিল। ফলাফলে দেখা যায় যে, লেনালিডোমাইড অল্প বয়স্ক রোগীদের মধ্যে ২ বছরেরও বেশি এবং বয়স্ক রোগীদের বেঁচে থাকার গড় সময় ১ বছর পর্যন্ত বাড়িয়ে দিতে পারে। এই ওষুধে যেকোনো বয়সের রোগীদের মৃত্যু ঝুঁকি ৫০ শতাংশ কমিয়ে দেয়। ওষুধটি বিশ্বব্যাপী পৌঁছে দিতে পারলে ক্যান্সার চিকিৎসা আরও সহজ হবে বলে মনে করেন আবিস্কারক।
Powered by Blogger.