Header Ads

স্কিন ক্যান্সারের কারণ এবং বাঁচার উপায়

বর্তমান বিশ্বে নীরব মহামারীর মতে ছড়াচ্ছে ক্যান্সার। সারা বছর ত্বকে কম-বেশি র‌্যাশ, প্রদাহ বা ঘামাচি হয়ে থাকে আমাদের। এসব বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এমনিতেই সেরে যায়। কিন্তু ত্বকের বেশ কিছু সমস্যাকে অবহেলা করলে তা কিন্তু মারাত্মক আকার নিতে পারে। আমাদের ত্বকের নানা স্তর এতই স্পর্শকাতর হয় যে আমাদের অসতর্কতার ফলে ছোট কোনো প্রদাহ বা র‌্যাশ থেকেও সৃষ্টি হতে পারে প্রাণঘাতী ক্যান্সার! কিন্তু কিছু সতর্কতা অবলম্বন করলেই ত্বকের ক্যান্সার থেকে সহজেই মুক্ত থাকা যায়।
এমন কিছু সতর্কতা এবার দেখে নিন :
► দীর্ঘ সময় ধরে অতিরিক্ত রোদে ঘোরাঘুরি করা বন্ধ করুন। তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি ছাড়ালেই সতর্ক হবেন। যখনই রোদে বের হবেন, শরীরের সমস্ত খোলা অংশে সানস্ক্রিন মাখুন। অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে আপনার ত্বকের উপযুক্ত সানস্ক্রিন বেছে নিন। দীর্ঘ সময় ধরে কড়া সূর্যালোক সরাসরি ত্বকে লাগলে তা চামড়াকে পুড়িয়ে দেওয়ার পাশাপাশি ক্যান্সারও ডেকে আনে।
​► অনেককেই পেশার প্রয়োজনে কড়া মেকআপ নিতে হয়। কেউ আবার এমনিতেই সারাক্ষণ কড়া মেকআপ নিয়ে বসে থাকেন। মেকআপের কেমিক্যালস ত্বকের কোষের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। দার্ঘ দিন ত্বকের উপর এসব কেমিক্যালসের আস্তরণ ক্যান্সার ডেকে আনে। ঘন ঘন ব্লিচ করার প্রবণতাও কমিয়ে ফেলুন। বরং আস্থা রাখুন ঘরোয়া উপায়ে ত্বক চর্চার। একান্তই ব্লিচ করাতে হলে তিন মাস অন্তর করান।
​►ত্বকের জন্য নিয়মিত মেডিক্যাল চেকআপ তো  দূরের কথা; খুব একটা সমস্যায় না পড়লে আমরা কোনোভাবেই চিকিৎসকের কাছে যেতে চাই না। কিন্তু এই অবহেলার কারণেই রোগ বড় আকার ধারণ করতে পারে। প্রতি মাসে না হলেও দুই মাসে একবার বিশেষজ্ঞ দিয়ে নিজের ত্বক পরীক্ষা করুন। ছোট কোনো অসুখকে দীর্ঘদিন ফেলে রাখলে সেটাই পরে বড় আকার ধারণ করে। ত্বকে অস্বাভাবিক কোনো দাগ বা প্রদাহ দেখা দিলে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে যান।
Powered by Blogger.