Header Ads

ফোল্ডেবলের পর এবার ফ্লিপ স্মার্টফোন আনল স্যামসাং

সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে স্যামসংয়ের প্রথম ফোল্ডেবল স্মার্টফোন। যার লুক ও ফিচার নজর কেড়েছে টেকস্যাভিদের। যদিও তার নাম বা দাম এখনও কোনওটাই জানায়নি কম্পানি। তবে তারই মধ্যে আরও একটি আকর্ষণীয় মডেল সামনে আনল স্যামসং।
এক সময় অনেকেই স্যামসংয়ের ফ্লিপ ফোন ব্যবহার করতেন। বেশ কয়েকটি মডেল বেশ জনপ্রিয়ও হয়েছিল। সেই নস্ট্যালজিয়াই ফেরাচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়ার সংস্থা। প্রকাশ্যে এল W2019 ফ্লিপ স্মার্টফোন। গত বছর বাজারে এসেছিল W2018। তারই আপগ্রেডেড ভার্সন এই স্মার্টফোন। চলুন জেনে নেওয়া যাক এই নতুন মডেলের আকর্ষণীয় ফিচারগুলি কী কী।
১. ডায়মন্ড কাট ফিনিশের এই হ্যান্ডসেটটি ১৭.৩ এমএম পুরু। ওজন ২৫৭ গ্রাম।
২. ৪.২ ইঞ্চির আলমন্ড ডিসপ্লের ফোনটিতে রয়েছে ফুল এইচডি রেজোলিউশন।
৩. অ্যান্ড্রয়েড ৮.১ ওরিও অপারেটিং সিস্টেমের ফ্লিপ ফোন কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৪৫ প্রসেসর যুক্ত।
৪. রয়েছে ৬ জিবি ব়্যাম। এ থেকেই ধারণা করা যায় ফোনটিতে যে কোনও অ্যাপ কত দ্রুত কাজ করবে।
৫. ১২৮ জিবি এবং ২৫৬ জিবি, দুরকম মেমোরির ফোনই বাজারে পাওয়া যাচ্ছে।
৬. ফোনটিতে রয়েছে ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরা। দুটিই ১২ মেগাপিক্সলের। আর সেলফির জন্য রয়েছে ৮ এমপি ফ্রন্ট ক্যামেরা।
৭. ৩০৭০ এমএএইচ ব্যাটারি-যুক্ত ফোনটিকে ব্লুটুথ, জিপিএস, ওয়াই-ফাইয়ের মতো সাধারণ ফিচারগুলি তো রয়েইছে।
৮. সাইড বাটনে থাকছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরও।
৯. রুপোলি ও সোনালি দুটি রঙে মিলবে এই মডেল।
হ্যান্ডসেটটির দাম সরকারিভাবে কিছু জানানো না হলেও এর মূল্য আনুমানিক ১,৪৩৯ ডলার। তবে ফিচারগুলি মনে ধরলেও ক্রেতাদের হাত-পা বাঁধা। কারণ এই মডেল দক্ষিণ কোরিয়ার কয়েকটি মার্কেট ছাড়া আপাতত শুধু চীনের বাজারেই পাওয়া যাচ্ছে। অর্থাৎ কিনতে চাইলেও এখন উপায় নেই।
Powered by Blogger.